LAW FIRM IN BANGLADESH TRW LOGO TAHMIDUR RAHMAN

Contact No:

+8801708000660
+8801847220062
+8801727983838

How to obtain mutation khatian in Bangladesh

How to obtain mutation khatian in Bangladesh

Mutation khatian in Bangladesh

In Bangladesh, mutation is a significant role in land ownership. When you acquire ownership of land or property, you must execute the mutation. It is a crucial piece of evidence supporting the land’s title.

If your name is not on the most recent Khatian or if you update the record through mutation, you will be unable to sell the land. In other words, if the seller’s name is not changed, you will be unable to purchase land.

If you have a property, you should be aware of mutation khatian.

In general, mutation refers to writing the new owner’s name in the Khatian who has acquired ownership through transfer or inheritance.

Screenshot 2023 08 09 At 1.13.25 Pm
How To Obtain Mutation Khatian In Bangladesh 6

In other words, it refers to the legal procedure of documenting the name of a new landowner by changing and updating the Khatian in order to pay land development tax.

Separation of holdings

If a Khatian contains the names of numerous owners, the process of separating the portions of an owner by generating a new Khatian is known as. Joma Kharij is addressed in Section 117 of the State Acquisition and Tenancy Act of 1950 (the “SAT Act”).

The Legal Basis for Mutation

Mutation is addressed in Section 143 of the State Acquisition and Tenancy Act 1950, as well as Rules 8, 9, and 23 of the Tenancy Rules 1954-1955. Aside from those, the government has issued other circulars in this regard.

When it is necessary to mutate

If a person acquires land through any legal means, the applicable Khatian must be updated. A mutation is then necessary.

One of the primary goals of the mutation is to notify the government about the most recent change in ownership and to allow the government to collect land tax from the new owner.

Screenshot 2023 08 09 At 1.09.30 Pm
How To Obtain Mutation Khatian In Bangladesh 7

Mutation is usually required for the following reasons:

  • If the landowner dies and his or her heirs wish to update the documents.
  • If land title is transferred via recorded deed.
  • If land ownership is dissolved due to alluvion or under SAT Act sections 90, 91, 92, and 93.
  • If a person obtains ownership of land through a civil court order.
  • For khas land settlement.
  • The mutation process

To modify a piece of land, the owner must submit an application to the AC (Land) in the prescribed form. There are several government fees to consider.

Tahmidur Rahman Remura Wahid is a prominent property law firm in Bangladesh that specializes in assisting clients with various legal aspects of property ownership and transfer. With a team of experienced lawyers and legal experts, the firm offers comprehensive services to clients seeking mutation khatian.

Our lawyers expertise in property laws, local regulations, and bureaucratic procedures makes them a reliable partner for individuals and businesses navigating the mutation process.

Step-by-Step Process of Obtaining Mutation Khatian

a. Documentation:

The process begins with the collection and verification of necessary documents, including land deeds, title documents, tax receipts, and identity proofs. The legal team at Tahmidur Rahman Remura Wahid assists clients in ensuring all required documents are in order.

b. Application Submission:

The completed application, along with the requisite documents, is submitted to the local Union Parishad or Municipal Office where the property is located. The application is accompanied by a prescribed fee.

c. Site Inspection:

Government officials conduct a site inspection to verify the details provided in the application. This step is crucial to ensure the accuracy of the property’s physical attributes and ownership information.

Screenshot 2023 08 09 At 1.11.33 Pm
How To Obtain Mutation Khatian In Bangladesh 8

d. Public Notice:

A public notice is issued to allow for any objections or claims regarding the mutation. This provides an opportunity for interested parties to raise concerns, if any.

e. Objection Resolution:

If objections arise, the legal team at Tahmidur Rahman Remura Wahid assists in resolving disputes and ensuring a fair resolution. This may involve legal negotiations and documentation.

f. Mutation Entry:

Upon resolution of objections, if any, the mutation entry is made in the land records, reflecting the change in ownership or property details. The updated khatian is issued to the property owner.

Benefits of Engaging Tahmidur Rahman Remura Wahid for obtaining mutation khatian in Bangladesh

Partnering with Tahmidur Rahman Remura Wahid offers several benefits throughout the mutation khatian process:

a. Legal Expertise: The firm’s legal experts have an in-depth understanding of property laws and regulations in Bangladesh. This expertise ensures a seamless and legally compliant mutation process.

b. Document Preparation: The firm assists clients in compiling and preparing all necessary documents, reducing the chances of errors or omissions that could lead to delays or rejections.

c. Objection Handling: In case of objections or disputes, the legal team employs effective negotiation and legal strategies to ensure a smooth resolution in favor of the client.

d. Time Efficiency: The experienced legal professionals expedite the mutation process, minimizing unnecessary delays and ensuring timely completion.

e. Peace of Mind: Engaging Tahmidur Rahman Remura Wahid offers clients peace of mind, knowing that their property matters are in the hands of capable legal experts.

The candidate must clearly state in the application form

Screenshot 2023 08 09 At 1.12.33 Pm
How To Obtain Mutation Khatian In Bangladesh 9

the applicant’s and transferor’s names and addresses; a detailed description of the land and its surrounding boundaries; the size, type, and identification of the land; information related to all prior Khatians; and the date of such registration.
Furthermore, the applicant should include a copy of

Title deed, through deed, copy of Khatian, proof of payment of land development tax, copy of the decree or judgment obtained from the competent court (if applicable), passport size photograph of the applicant, and other supporting documentation should be included with the application.
In the case of inheritance, the procedure is slightly different. It is necessary to have a succession certificate.

A mutation proceeding is not a judicial proceeding that determines title to immovable property. It can only be used as proof at best.

In any mutation case, there is a right to appeal the ruling.

Appeal

If a person is dissatisfied with the outcome of a mutation case, he or she may submit an appeal with the collector, and the appeal may be heard by the Commissioner of the Division.

There are also review and correction options.

Change with the appropriate government agency for leasehold property

If your property is rented from a government agency (for example, RAJUK or the National Housing Authority), you may need to update the record kept by that government organization.

If you acquired the lease straight from the government agency, no modification is required with the agency. If you gained the land by a method other than the lease, you must change your name in the agency’s records.

Land mutation and ownership

I have full mutation, thus I must be the owner of the land, right? This was a frequently asked question.

The answers are not so straightforward.

Let’s start with Khatian because we’re modifying it through mutation.

Khatian is not a title document in and of itself. It is proof of present possession. A Khatian does not create or abolish titles. It is simply a record of physical possession at the time of preparation.

Similarly, mutation does not give title. Simple mutation and rent payment do not confer any title on anyone[9].

Mutation, on the other hand, might be valuable evidence if backed by additional evidence. Rent paid after mutation will also serve as evidence.

Rent receipts, while not title documents, are crucial pieces of proof of possession and can be used as collateral evidence of possession because possession usually accompanies title.

Screenshot 2023 08 09 At 1.16.37 Pm
How To Obtain Mutation Khatian In Bangladesh 10

Municipal rent receipts are also proof of occupancy following title.

Thus, mutation serves as critical evidence in proving property title. Once you own any land, you should complete your mutation.

A land cannot be sold without mutation.

With effect from July 1, 2005, the government modified the Registration Act of 1908 and the Transfer of Property Act of 1882 in 2004.

As a result of the amendments to both Acts –

If the seller is not the owner of the property through inheritance, the name of the seller or his/her predecessor must be included in the latest Khatian; otherwise, the name of the seller or his/her predecessor must be included in the latest Khatian.
As a result, if the seller’s name is not stated or updated in the most recent Khatian, you should not purchase that land. Because you may be unable to register the deed of sale.

FAQAnswer
What is Mutation Khatian?Mutation Khatian, also known as Namjari, is a legal document that records changes in ownership of a piece of land in the government’s record. It replaces the existing owner’s name with the new owner’s name.
Why is Mutation Khatian important?Mutation Khatian is crucial for legal protection of property. Failure to execute mutation can lead to complications in property ownership, land tax payments, property sales, bank loans, and potential fraud or harassment.
How does Mutation Khatian prevent fraud?Executing Mutation Khatian ensures that the new owner’s name is recorded in the property record, preventing previous owners from making unfair claims to the property.
Is Mutation Khatian required for bank loans?Yes, Mutation Khatian is a mandatory document for applying for a bank loan or mortgage. Without it, obtaining a loan or building a house is not legally possible.
How do I execute Mutation Khatian?To execute Mutation Khatian, you need to collect an application form from the Assistant Commissioner (Land) office, provide details about the property, submit required documents (e.g., deed, khatian, receipts), and either apply online or through a lawyer/representative.
What documents are needed for Mutation Khatian?Required documents include the applicant’s full name and address, registered transfer documents, photocopies of deeds, Bia documents, Parcha or Khatian, payment receipts, distribution deed (if applicable), and photographs.
Can I apply for Mutation Khatian myself?Yes, you can collect the necessary documents and apply for Mutation Khatian on your own by paying the prescribed fee. Alternatively, you can hire a lawyer or representative to assist you.
How does TRW law firm help?Tahmidur Rahman Remura Wahid provides legal services for property-related matters, including Mutation Khatian. They can guide you through the process and address any concerns you have.
What happens if I don’t execute Mutation Khatian?Failure to execute Mutation Khatian can result in difficulties transferring ownership, paying taxes, selling property, or obtaining loans. It may also expose you to potential disputes and fraud.
Why should I seek professional assistance?Seeking legal expertise, such as from TRW Law firm , can ensure that the Mutation Khatian process is executed accurately and efficiently, minimising errors and complications.

Contact the best land lawyers and property law firm in Bangladesh:


GLOBAL OFFICES:
DHAKA: House 410, ROAD 29, Mohakhali DOHS
DUBAI: Rolex Building, L-12 Sheikh Zayed Road
LONDON: 1156, St Giles Avenue, Dagenham

Email Addresses:
[email protected]
[email protected]
[email protected]

24/7 Contact Numbers, Even During Holidays:
+8801708000660
+8801847220062

+8801708080817

বাংলাদেশে জমি রেজিস্ট্রেশন আইন এবং কিভাবে জমি রেজিস্ট্রেশন করবেন 2023  এ | Effective way of Registering Land

বাংলাদেশে জমি রেজিস্ট্রেশন আইন এবং কিভাবে জমি রেজিস্ট্রেশন করবেন 2023 এ | Effective way of Registering Land

বাংলাদেশে জমি রেজিস্ট্রেশন আইন এবং কিভাবে জমি রেজিস্ট্রেশন করবেন ২০২২ এ

Best Advocate Lawyer Barrister In Bangladesh

তাহমিদুর রহমান, Director and Senior Associate

বাংলাদেশে অনেক মানুষই ভূমি আইন সম্পর্কে খুব বেশি জানেন না। ফলে তারা জমি নিয়ে নানা ধরনের প্রতারণা ও হয়রানির শিকার হন। জমি রেজিস্ট্রেশন করা খুবই জরুরি। রেজিস্ট্রেশন আইন ২০০৪ (সংশোধিত) অনুযায়ী, প্রায় সকল দলিল রেজিস্ট্রি করা বাধ্যতামূলক।
আইন অনুযায়ী দলিল রেজিস্ট্রি করা হলে মালিকানা নিয়ে বিরোধ এড়ানো যায়। এছাড়া জমি রেজিস্ট্রি করা থাকলে পরবর্তীতে বিক্রি, দান, উইল করতে সহজ হয়। স্থাবর সম্পত্তি বিক্রয় দলিল অবশ্যই লিখিত হতে হবে। এখানে আমরা আজকে জমি রেজিস্ট্রেশন নিয়ে বিশদ আলোচনা করব। 

Table of Contents

Find the subsections below, If you want to jump through specific sections instead of reading the whole article.

চেক-ডিসঅনার-মামলা-_-Best-Company-Law-Firm-In-Bangladesh-2

বাংলাদেশে জমি রেজিষ্ট্রেশন সংস্থার বিবরণ – ইন্সপেক্টর জেনারেল, রেজিস্ট্রার ও সাব-রেজিস্ট্রার

জমি রেজিস্ট্রেশন এর কার্যকলাপ সুষ্ঠু ভাবে পর্যালোচনা করার জন্য বাংলাদেশে একজন ইন্সপেক্টর জেনারেল আছেন। গত কয়েক বৎসর ধরে জেলা জজ পর্যায়ের অফিসারদেরকে সরকার ইন্সপেক্টর জেনারেলরূপে নিয়োগ করে আসছে। ইন্সপেক্টর জেনারেলের নিচে রেজিস্ট্রার ও সাব-রেজিস্ট্রার নিয়াজিত আছেন।

সরকার রেজিষ্ট্রেশন কর্মের সুবিধার জন্য সারা দেশকে জেলায় এবং উপজেলায় বিভক্ত করেন এবং এই বিভাগকে গেজেটে বিজ্ঞাপিত করেন। তাছাড়া সরকার একে পরিবর্তনের ক্ষমতাও রাখেন।

এই সমস্ত এলাকায় সরকার রেজিস্ট্রার ও সাব- রেজিস্ট্রার নিয়োগ করেন। সরকার রেজিষ্ট্রেশন এর কাজ সুনিষ্পন্ন করবার জন্য ইন্সপেক্টর জেনারেল অব রেজিষ্ট্রেশন, রেজিন্ট্রার ও সাব-রেজিস্ট্রারের অফিস স্থাপন করেন।

এছাড়া সরকার এখতিয়ার অনুযায়ী রেজিষ্ট্রেশন অফিসের ইন্সপেক্টর নিয়াগ করতে পারেন। রেজিস্ট্রার অনুপস্থিতে থাকলে কিংবা তার পদ শূন্য থাকলে জেলা জজ তার কাজ করতে পারেন। সাব-রেজিস্ট্রার অনুপস্থিত থাকলে বা তার পদ শূন্য থাকলে রেজিস্ট্রার কর্তৃক নিয়োজিত যেকোন ব্যক্তি সাব-রেজিস্ট্রারের কাজ করতে পারেন।

সরকার প্রত্যেক রেজিষ্ট্রেশন অফিসে অগ্নিনিরোধক বাক্স সরবরাহ করেন এবং দলিল রেজিস্ট্রিকরণ সম্পর্কিত রেকর্ডসমূহের নিরাপদ সংরক্ষণের জন্য উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।

জমি রেজিস্ট্রেশন এর ক্ষেত্রে কোন দলিল অবশ্যই রেজিস্ট্রি করতে হবে

এবার দেখা যাক, কোন কোন দলিল অবশ্যই রেজিস্ট্রি করতে হবে। এই প্রসঙ্গে কয়েকটি প্রাথমিক বিধান জানিয়া নেওয়া প্রয়োজন।

কোন শ্রেণীর দলিল রেজিস্ট্রি করতে হবে তা আইন স্পষ্ট করে বলে দিয়াছে। যে সমস্ত দলিল আইন অনুযায়ী অবশ্যই রেজিস্ট্রি করতে হবে, সেই সমস্ত দলিল রেজিস্ট্রি না হলে ঐ দলিল দ্বারা কোন আদান প্রদান প্রমাণিত হয় না।

ধরুন, ওয়াহিদ তার একখানি জমি পাঁচ লাখ টাকা মূল্যে সাবেতের নিকট বিক্রয় করলেন। দলিল সঠিকভাবে লিখত হল কিন্তু রেজিস্ট্রি করা হল না। এই রেজিস্ট্রিবিহীন দলিল দ্বারা সাবেত দলিলের জমির উপর কোন স্বত্ব লাভ করেন না।

স্থাবর সম্পত্তির দানের দলিল অবশ্যই রেজিস্ট্রি করতে হবে। তবে বাংলাদেশের মুসলমান ইসলামী আইনে তার স্থাবর সম্পাত্তি হিবা বা দান করতে পারে এবং হিবার জন্য দলিল রেজিস্ট্রির আবশ্যক হয় না। তবে দানের জন্য কোন দলিল লিখতে হয় তা হলে তা রেজিস্ট্রি করতে হবে।

যে স্থাবর সম্পত্তির মূল্য একশত টাকা বা তার বেশি সেই স্থাবর সম্পত্তি সম্পর্কে প্রায় সকল প্রকার দলিল অবশ্যই রেজিস্ট্রি করতে হবে। যে দলিল দ্বারা স্থাবর সম্পত্তিতে কোন অধিকার বা সত্ত্ব বা অন্য যেকোন প্রকারের স্বার্থ সৃষ্টি হয়, ঘোষিত হয়, পরিবর্তিত হয়, প্রদত্ত হয়, সীমায়িত হয় এবং বিলুপ্ত হয় সেই দলিল অবশ্যই রেজিস্ট্রি করতে হবে। তবে উইলের ক্ষেত্রে এই বিধান প্রযোজ্য নয়।

সম্পত্তির উপর অধিকার বা স্বার্থ নানা প্রকার দলিলের মাধ্যমে জন্মাতে পারে। ক্রয়, বন্ধক, লীজ, বিনিময় প্রভৃতির মাধ্যমে সম্পত্তি অর্জন করা যায় এবং এইভাবে স্বত্ব অর্জন করতে হলে তা রেজিস্ট্রিকৃত দলিলের মাধ্যমে করতে হয়। যে দলিল দ্বারা স্বত্ব ঘােষিত হয় বা খর্বিত হয় না নষ্ট হয়, সেই দলিল রেজিস্ট্রি করতে হবে।

যে রসিদ দ্বারা কোন স্বত্ব বা অধিকার সৃষ্ট, ঘোষিত, খর্বিত, হস্তান্তরিত বা বিলুপ্ত হয় তাও রেজিস্ট্রি করতে হবে।

লীজ করিবার চুক্তি দলিল রেজিস্ট্রি

যে লীজ দলিল দ্বারা লীজগ্রহীতার বরাবরে তাৎক্ষণিকভাবে লীজভুক্ত সম্পত্তির দখল অর্পণ করা হয় সেই লীজ দলিল, যদি এক বৎসরের উর্ধ্বে মেয়াদী লীজ হয় কিংবা বাৎসরিক খাজনার শর্তে লীজ হয়, রেজিস্ট্রি করতে হবে।

অন্যভাবে লীজ করিবার চুক্তি দলিল রেজিস্ট্রি করা বাধ্যতামূলক নয়। এক বৎসরের কম সময়ের জন্য লীজ হলে রেজিস্ট্রি দলিল দরকার নেই। যদি লীজ এক বৎসরের উর্ধ্বকালের জন্য হয় এবং দলিল রেজিস্ট্রি করা না হয়, তা হলে ঐ লীজ বেআইনী হবে না। সেই ক্ষেত্রে মনে করা হবে যে, লীজ এক বৎসরের জন্য বা এক মাসের জন্য করা হয়েছে।

আদালতের ডিক্রি বা হুকুমনামা যদি কোন স্বত্ব সৃষ্টি বা বিলোপ করে তা হস্তান্তর করতে হলে রেজিস্ট্রি করতে হবে।

যেই সমস্ত ক্ষেত্রে দলিল রেজিস্ট্রি করা আবশ্যক সেই সমস্ত ক্ষেত্রে দলিল রেজিস্ট্রি করতেই হবে। যেই সমস্ত ক্ষেত্রে দলিল রেজিস্ট্রি করা আবশ্যক নহে সেই সমস্ত ক্ষেত্রেও দলিল রেজিস্ট্রি করা যেতে পারে, এতে কোন ক্ষতি-বৃদ্ধি হয় না।

দলিলের মধ্যে কাটা-ছেঁড়া বা পরিবর্তন থাকলে তা দলিল সম্পাদনকারী স্বাক্ষর করে প্রত্যয়ন করবেন; তা না হলে রেজিস্ট্রিকারী অফিসার ঐ দলিল রেজিস্ট্রি করতে অস্বীকার করবেন।

বাংলাদেশে জমি রেজিস্ট্রেশান আইন এবং কিভাবে জমি রেজিস্ট্রেশান করবেন ২০২২ এ_ Best Law Firm In Bangladesh.png

জমি রেজিস্ট্রেশান আইন-ঃ দলিলে সম্পত্তির বিবরণ

দলিল দ্বারা সম্পত্তি সম্পর্কে অধিকার বা স্বত্ব সৃষ্টি অথবা বিলুপ্ত হয়। তাই যে দলিল দ্বারা এই সৃজন ও বিলাপন ঘটে সেই দলিলের মধ্যে সংশ্লিষ্ট সম্পত্তির সনাক্তযোগ্য বিবরণ থাকা উচিত।

তা না থাকলে তা রেজিস্ট্রি করিবার জন্য গৃহীত না-ও হতে পারে।

ধরুন হাফিয সাহেব তার শহরের বাড়িখানি বিক্রয় করতে চাহিলেন। দলিলের মধ্যে এই বাড়ির সনাক্তযােগ্য বিবরণ লিখতে হবে প্রথমে ঐ বাড়িখানি শহরের কোন রাস্তায় অবস্থিত তার পরিচয় লিখতে হবে। বাড়ির নম্বর লিখতে হবে। বাড়ির উত্তরে কে বা কারা আছে তা লিখতে হবে। বাড়িতে আগে কে থাকতেন তা লিখতে হবে।

হাফিয তার গ্রামের জমিখানি বিক্রি করতে চাহিলে সেই ক্ষেত্রে তাকে ঐ জমির দাগ ও খতিয়ান, মৌজা, জেলা প্রভৃতি লিখতে হবে। ঐ জমি পূর্বাপর কে দখল করে আসিতেছিল, তাও লিখতে হবে।

বাংলাদেশে জমি রেজিস্ট্রেশান আইনঃ দলিল সম্পাদন কাকে বলে? কত দিনের মধ্যে দলিল রেজিস্ট্রি করতে হয় ?

 

সাধারণত, যে তারিখে দলিল সম্পাদিত হয় সেই তারিখ হতে চার (৪) মাসের মধ্যে ঐ দলিল রেজিস্ট্রি করিবার জন্য রেজিস্ট্রিকারী অফিসারের কাছে দাখিল করতে হবে।

এবং চার মাসের বেশি দেরি হয়ে গেলে ঐ দলিল রেজিস্ট্রি করিবার জন্য গৃহীত হয় না। এই প্রসঙ্গে সম্পাদন কাহাকে বলে তা আপনার বুঝে নেওয়া প্রয়োজন। হাফিজ তার একখান জমি কবালা দলিলমূল্যে বিক্রয় করবেন। দলিল লেখককে হাফিজ তার জমির বিবরণ, ক্রেতার বিবরণ, তার স্বত্বের পরিচয়, মূল্যের পরিমাণ প্রভৃতি সকল জ্ঞাতব্য বুঝাইয়া দিলেন। দলিল লেখা হয়ে গেল।

হাফিজ সাহেব কে তা পড়িয়া শুনান হল। তিনি বুঝিতে পারিলেন যে, দলিলখানা ঠিকমত লেখা হয়েছে অত:পর তিনি প্রতি পৃষ্ঠা তে স্বাক্ষর করলেন। এই স্বাক্ষর দ্বারা দলিলখানি সম্পাদিত হল।

এই সমস্ত কাজ নিষ্পন্ন হয়ে গেলে স্বাক্ষরদানকে সম্পাদন বলে। সম্পাদনের সময় যে তারিখ দেওয়া হয় তাকেই সম্পাদনের তারিখ বলে ধরা হয়। 

 

 একাধিক ব্যক্তির দলিল সম্পাদন

এমন অবস্থা হতে পারে যে, একটি দলিল একাধিক ব্যক্তি সম্পাদন করিল। সেই ক্ষেত্রে প্রত্যেক সম্পাদন হত চারি মাসের মধ্যে দলিল রেজিস্ট্রির জন্য দাখিল করতে হবে।

তার নির্ধারিত সময়ের মধ্যে অনিবার্য কারণে দলিল রেজিস্ট্রির জন্য দাখিল করা না গেলে রেজিস্টারের নিকট দরখাস্ত করা যেতে পারে এবং রেজিস্টার চার মাসের বেশি দেরি না হলে রেজিস্ট্রেশন ফি-এর দশ গুণ পর্যন্ত জরিমানা করে তা রেজিস্ট্রির আদেশ দিতে পারেন। এই বিলম্ব মার্জনা করিবার জন্য সাব-রেজিস্টারের কাছে দরখাস্ত করা হলে তিনি তা তার রেজিস্ট্রারের নিকট পাঠাইবেন।

বাংলাদেশের বাহিরে জমি রেজিস্ট্রেশন এর দলিল সম্পাদন

কোন দলিল যদি বাংলাদেশের বাহিরে সম্পাদিত হয় তা হলে ঐ দলিল দেশে পৌছিবার চারি মাসের মধ্যে দাখিল করতে হবে।

রেজিস্ট্রিকারী অফিসার দেশে দলিলটি পৌছিবার তারিখ সম্পর্কে সাক্ষ্য-প্রমাণ লইয়া যথার্থতা নির্ধারণ করতে পারবেন এবং উপযুক্ত ফি লইয়া তা রেজিস্ট্রি করতে পারবেন। উইল যে কোন সময় রেজিস্ট্রির জন্য দাখিল করা যায়, এই ব্যাপারে কোন তামাদি নেই।

কোন অফিসে দলিল রেজিস্ট্রি হবে:

 

এইবার আমরা দেখিব দলিল কোন অফিসে জমি রেজিস্ট্রেশন এর জন্য দাখিল করতে হয়। যে সমস্ত সাব-রেজিস্ট্রি অফিসের এলাকায় সম্পত্তি অবস্থিত সেই সমস্ত সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে দলিল রেজিস্ট্রির জন্য দাখিল করতে হয়। সম্পত্তির অংশ যে সাব-রেজিস্ট্ি অফিসে অবস্থিত সেখানেও দাখিল করা যায়। তবে যে সাব-রেজিস্ট্রি অফিসের এলাকায় সম্পত্তি অবস্থিত নহে সেই সাব- রেজিস্ট্রি অফিসে ঐ সম্পত্তির বিষয়ে দলিল রেজিস্ট্রি হলে দলিলের পক্ষবৃন্দ কোন প্রশ্ন উত্থাপন করতে পারবেন না।

 

 

বাংলাদেশে জমি রেজিস্ট্রেশান আইন এবং কিভাবে জমি রেজিস্ট্রেশান করবেন ২০২২ এ_ Best Law Firm In Dhaka.png

বাংলাদেশে জমি রেজিস্ট্রেশন আইন : জমি কে দাখিল করবে ? কিভাবে আম-মোক্তারনামা সম্পাদন করবেন?

এবার দেখ যাক, জমি রেজিস্ট্রেশন এর জন্য কাহারা দলিল দাখিল করতে পারেন। যিনি দলিল সম্পাদন করেছেন কিংবা যিনি ঐ দলিলের দাবিদার কিংবা তাদের প্রতিনিধি বা আম-মোক্তারনামা দলিল দাখিল করতে পারেন।

যিনি যে জেলার বা উপজেলার অধিবাসী তিনি সেই জেলায় বা উপজেলায় আম-মােক্তারনামা সম্পাদন করবেন: তিনি যদি বাংলাদেশের বাহিরে বাস করেন তবে নোটারি পাবলিকের সম্মুখে আম-মোক্তারনামা সম্পাদন করবেন।

কোন ব্যক্তি যদি সাব-রেজিস্ট্রির বা রেজিস্ট্রার বা নােটারী পাবলিকের সামনে যেতে ব্যর্থ হন তা হলে তার অনুপস্থিতিতেও রেজিস্ট্রার, সাব-রেজিস্ট্রার বা নোটারি পাবলিক আম-মোক্তারনামা সহিমহর করতে পারবেন। এইভাবে সম্পাদিত আম-মোক্তারনামা শুধু রেজিস্ট্রিকারী অফিসারগণ গ্রহণ করতে পারবেন ।

কোন দলিলের সম্পাদনকারী বা বৈধ প্রতিনিধি যদি উক্ত সম্পাদনের চারি মাসের মধ্যে দলিলটি রেজিস্ট্রিশনের জন্য রেজিস্টরি অফিসে দাখিল না করে, তা হলে রেজিস্ট্রিকারী অফিসার তা এই আইনমতে রেজিষ্ট্রি করবেন না।

তবে শর্ত থাকে যে, সম্পাদনকারী উক্ত সময়ের মধ্যে দলিল না করিবার যােগ্য কারণ প্রদর্শন করতে পারিলে বা রেজিস্ট্রিকারীকে সন্তুষ্ট করতে পারিলে নির্ধারিত জরিমানা প্রদান সাপেক্ষে রেজিস্ট্রিকারী অফিসার উক্ত দলিল রেজিস্ট্রি করতে পারবেন।

রেজিস্ট্রিকারী অফিসারকে কোন দলিল রেজিস্ট্রি করিবার পূর্বে উক্ত দলিলটি প্রকৃত ব্যক্তি কর্তৃক সম্পাদিত হয়েছে কিনা, অথবা মনােনীত ব্যক্তিকে উক্তরূপ ক্ষমতা প্রকৃতপক্ষে প্রদত্ত হয়েছে কিনা তা তদন্ত করিবার ক্ষমতা প্রদান করা হয়েছে।

তবে শর্ত থাকে যে, এই বিধানসমূহ ডিক্রি বা হুকুমনামার নকলের ক্ষেত্রে প্রযােজ্য হবে না।

দলিল সম্পাদনকারী বা সম্পাদনকারিগণ যদি ব্যক্তিগতভাবে রেজিস্ট্রি অফিসে উপস্থিত হয় এবং স্বীকার করে যে, দলিলাটি সে বা তারা সম্পাদন করেছে, তা হলে রেজিস্ট্রি অফিসার উক্ত দলিলটি রেজিস্ট্রি করবেন।

রেজিস্ট্রিকারী অফিসার দলিলটির বৈধতা অথবা তার যথার্থতা প্রতিপাদন করতে পারবেন না। কারণ ইহা নির্ধারণ করিবার ক্ষমতা রেজিস্ট্রি অফিসারের নেই। রেজিস্ট্রি অফিসার শুধু লক্ষ্য এবং তদন্ত করবেন যে, উক্ত দলিলটি যোগ্য ব্যক্তি কর্তৃক থ্বেচ্ছায় সম্পাদিত হয়েছে কিনা। সুষ্ঠুভাবে সম্পাদিত হয়ে থাকলে তিনি তা রেজিষ্ট্রি করবেন, অন্যথায় না।

 যদি সম্পাদনকারীগণ (যাহাদের দ্বারা দলিলটি সম্পাদিত হওয়া আবশ্যক) উক্ত দলিলটির সম্পাদন অস্বীকার করে বা সম্পাদনকারীগণ যদি আহাম্মক বা মৃত হয় তা হলে রেজিস্ট্রি অফিসার তা রেজিস্ট্রি করতে অস্বীকার করতে পারিবে।

যেকোন দাবিদার (দলিলের) যদি অপর কোন ব্যক্তিকে হাজির বা সাক্ষ্য দেওয়াইতে চায় তা হলে উক্ত ব্যক্তি অফিসার বা কোর্টের নিকট এই মর্মে সমন জারি চাহিতে পারবেন।

আদালত প্রয়ােজন মনে করলে অথবা অফিসার প্রয়ােজন মনে করলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির নাম-ঠিকানাসহ অফিসে হাজির হবার তারিখ বা সময় উল্লেখ করে নােটিস প্রদান করবেন। যদি কোন ব্যক্তি শারীরিকভাবে অসুস্থ হয় বা দেওয়ানী অথবা ফৌজদারী কয়েদে আটক থাকে অথবা অন্য কোনভাবে ব্যক্তিগতভাবে উপস্থিত হওয়া হতে রেহাই পেয়ে থাকে তা হলে আদালত বা অফিস নিজে উক্ত ব্যক্তিদের নিকট যেয়ে জনাববন্দি গ্রহণ করবেন অথবা কমিশন নিয়ােগ করে জবানবন্দি গ্রহণ করবেন।

যখন কোন ব্যক্তিকে পরীক্ষা করিবার জন্য কমিশন নিয়ােগ করা হয় তখন কাগজপত্র দাখিলের উপর ভিত্তি করে রেজিষ্ট্রেশন করা যাবে না, যতক্ষণ উতক্ত ব্যক্তি সম্পর্কে কমিশন কোন রিপাের্ট না দেন।

কোন দলিল রেজিস্ট্রি না হলে যে সময় হতে কার্যকরী হত রেজিস্ট্রি হলেও তা ঐ সময় হতে কার্যকরী হবে অর্থাৎ সংক্ষেপে বলা যায় যে, কোন দলিল উক্ত দলিলটি সম্পাদনের তারিখ হতে কার্যকরী হবে, তার রেজিষস্ট্রেশনের তারিখ হতে নহে। তবে শর্ত থাকে যে, যদি কোন দলিলের রেজিষ্ট্রেশন অবৈধ হয় তা হলে এই বিধান প্রযােজ্য হবে না।

একজন বিক্রেতা যদি একই সম্পত্তি একাধিক ব্যক্তির নিকট বৈধ জমি রেজিস্ট্রেশন এর মাধ্যমে হস্তান্তর করে তা হলে দুইটি দলিলের যেইটি প্রথমে সম্পাদিত হয়েছে তা আইন গ্রাহ্য হবে।

৭৭ ধারা মতে, মামলা করতে হলে উক্ত অস্বীকৃতি আদেশের ৩০ দিনের মধ্যে করতে হবে। কোন নাবালক ৩০ দিনের পর এই ধারা মতে মামলা করতে পারিবে না। এইরূপ মামলার রায়ে আদালত উক্ত সম্মতি অর্থাৎ দলিল রেজিস্ট্রি করিবার নির্দেশ দিলে তা রেজিস্ট্রিকরণ আইনে অনুসারে রেজিস্ট্রি করতে হবে।

বাংলাদেশে জমি রেজিস্ট্রেশান আইন এবং কিভাবে জমি রেজিস্ট্রেশান করবেন ২০২২ এ_ Best Corporate Law Firm In Bangladesh.png

“Tahmidur Rahman Remura Wahid is Considered as one of the leading firms in Company Law in Dhaka, Bangladesh”

Bdlawfirms & Carpe Noctem Bangladesh

যদি বাংলাদেশে কোন সাব-রেজিস্ট্রার জমি রেজিষ্ট্রেশনে অস্বীকৃতি জ্ঞাপন করেন

সম্পাদনের অসম্মতি ব্যতীত অন্য কোন কারণে যদি সাব-রেজিস্ট্রার কোন দলিল রেজিস্টরি করতে অস্বীকৃতি জ্ঞাপন করেন তা হলে উক্ত আদেশের ৩০ দিনের মধ্যে তার উর্ধ্বতন রেজিস্ট্রারের নিকট এই আদেশের বিরুদ্ধে আপীল করা যাবে।

সম্পাদনে অসম্মতির কারণে যদি সাব-রেজিস্ট্রার কোন দলিল রেজিস্ট্রি করতে অস্বীকার করেন তা হলে উক্ত আদেশের বিরুদ্ধে আপীল করা যাবে না। রেজিস্ট্রারের নিকট আপীল করা হলে রেজিস্ট্রার যেই আদেশের বিরুদ্ধে আপীল করা হয়েছে তা রদবদল করতে পারবেন।

রেজিস্ট্রার যদি উক্ত দলিল রেজিস্ট্রিকৃত হবে বলে নির্দেশ দেন তা হলে উক্ত নির্দেশ দেওয়ার ৩০ দিনের মধ্যে তা রেজিষ্ট্রেশনের জন্য সাব-রেজিস্ট্রারের নিকট দাখিল করতে হবে।

ত্রিশ দিনের মধ্যে যদি উক্ত দলিল সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে রেজিস্ট্রিকরণের জন্য দাখিল করা হয় তা হলে সাব-রেজিস্ট্রির উক্ত দলিল এই আইনের আওতায় রেজিস্ট্রি করবেন।

কোন দলিলের সম্পাদনকারী অসম্মতির (সম্পাদনে) কারণে যদি সাব-রেজিস্ট্রার দলিলটি রেজিস্ট্রি করতে অস্বীকার করেন তা হলে ক্ষতিগ্রস্থ ব্যক্তি আবেদন করতে পারবেন।

কিন্তু তিনি আপীল করতে পারবেন না। দাবিদারের অবর্তমানে বা অনুপস্থিতিতে তার বৈধ প্রতিনিধি আবেদন করতে পারবেন। নাবালক হিন্দু স্ত্রীর পক্ষে তার স্বামী আবেদন করতে পারবেন।

উক্ত আবেদনের সহিত উক্ত অস্বীকৃতির কারণের নকল সংযুক্ত করে দিতে হবে এবং আবেদনপত্রে আরজির ন্যায় সত্যপাঠ করতে হবে। এই ক্ষেত্রে আবেদনপত্র আরজি হিসাবে গণ্য হবে তামাদি সময় হল ৩০ দিন। অর্থাৎ আদেশের তারিখ হতে ৩০ দিনের মধ্যেই এই ধারার আওতায় আবেদন করতে হবে।

রেজিস্ট্রার যদি সত্তুষ্ট হন যে, উক্ত দলিলটি সত্য সত্যই সম্পাদিত হয়েছে এবং প্রয়োজনীয় সকল পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়েছে তা হলে উক্ত দলিল রেজিস্ট্রি করার নির্দেশ দিবেন।

উক্ত নির্দেশ পাওয়ার পর ৩০ দিনের মধ্যে দাবিদার যদি তা জমি রেজিস্ট্রেশন জন্য সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে দাখিল করে তা হলে সাব-রেজিস্ট্রার তা রেজিস্ট্রি করবেন।

ইহা আইনত বৈধ জমি রেজিস্ট্রেশন বলে গণ্য হবে এবং তা প্রথম যে তারিখে রেজিস্ট্রেশনের জন্য দাখিল করা হয়েছিল সেই তারিখ হতে রেজিস্ট্রি হয়েছে বলে গণ্য হবে।

সংশ্লিষ্ট সম্পত্তি তার জেলায় অবস্থিত নহে অথবা দলিলটি অন্য সাব-রেজিস্ট্রার কর্তৃক রেজিস্ট্রি হবে এই সকল কারণ ব্যতীত রেজিস্ট্রার অন্য কোন কারণে দলিল রেজিস্ট্রি করতে অস্বীকার করলে অথবা এই আইনের ৭২ এবং ৭৫ ধারা অনুসারে কোন দলল রেজিস্ট্রি করতে অস্বীকার করলে তাকে উক্ত আদেশের কারণসমূহ ২নং বহিতে লিখিয়া রাখতে হবে এবং যতি তাড়াতাড়ি সম্ভাব দাবিদারকে উক্ত কারণের নকল প্রদান করতে হবে।

তবে জমি রেজিস্ট্রেশন এর শর্ত থাকে যে, রেজিস্ট্রারের কোন আদেশের বিরুদ্ধে কোন প্রকার আপীল চলিবে না। যখন কোন রেজিস্ট্রার এই আইনের ৭২ এবং ৭৬ ধারা অনুসারে দলিল রেজিস্ট্রি করিবার আদেশ দিতে অস্বীকৃতি জ্ঞাপন করেন তখন উক্ত দলিলের দাবিদার বা বৈধ প্রতিনিধি উক্ত অস্বীকৃতির আদেশ প্রদানের ৩০ দিনের মধ্যে উক্ত আদেশের বিরুদ্ধে দেওয়ানী আদালতে মামলা দায়ের করতে পারবেন।

দলিল রেজিস্ট্রেশনে বাধ্য করিবার জন্য দেওয়ানী আদালতে মামলা দায়ের এই আইনের সংঘটন নহে। তবে শর্ত থাকে, রেজিস্ট্রার যখন ৭২ ধারা মতে, রেজিস্ট্রি করতে অস্বীকৃতি জ্ঞাপন করেন কেবল সেই ক্ষেত্রে ৭৭ ধারা মতে দেওয়ানী মামলা করা যাবে। স্বাধীনভাবে ৭৭ ধারা অনুসারে দেওয়ানী আদালতে মামলা করা যায় না।

সাব-রেজিস্ট্রার এবং রেজিস্ট্রার কর্তৃক কোন দলিল রেজিস্ট্রি করতে অস্বীকৃতি জ্ঞাপন ৭৭ ধারা মতে দেওয়ানী মামলা করার পূর্বশর্ত।

বাংলাদেশে জমি রেজিস্ট্রেশান আইন এবং কিভাবে জমি রেজিস্ট্রেশান করবেন ২০২২ এ_ Best Property Law Firm In Bangladesh.png

দলিল রেজিষ্ট্রেশনের নতুন আইনের গুরুত্বপূর্ণ বিধানসমূহ –

 

রেজিস্ট্রিকৃত দলিলের বিষয়ঃ  

 

ভূমি হস্তান্তর সংক্রান্ত জাল-জালিয়াতি হ্রাস, একই ভূমি একাধিকবার বিক্রয় বন্ধ করা ও ভূমি সংক্রান্ত মামলা মকদ্দমা হ্রাসের উদ্দেশ্যে সরকার জমি রেজিস্ট্রেশন সংক্রান্ত চারটি আইনে (The Registration Act 1908, The Transfer of Property Act 1882, The Specific Relief Act 1877, The Limitation Act 1908) কিছু যুগউপযোগী সংশোধন করা হয়েছে।

জুলাই ২০০৫ হতে উক্ত নতুন বিধিবিধানসমূহ কার্যকর হয়েছে। নিচে গুরুত্বপূর্ণ রিভিশন সমূহ উল্লেখ করা হল :

(১) জমি রেজিস্ট্রেশন এর ক্ষেত্রে নিম্নোক্ত দলিলসমূহ অবশ্যই রেজিস্ট্রিকৃত হতে হবে অন্যথায় গ্রহণযোগ্য হবে না

(ক) মুসলিম পারিবারিক আইন মোতাবেক হেবা দলিল।

(খ) সম্পত্তি হস্তান্তর আইন অনুযায়ী সম্পাদিত বন্ধক দলিল।

(গ) স্থাবর সম্পত্তি অংশীদার বা উত্তরাধিকারদের মধ্যে বণ্টননামা দলিল ।

(ঘ) সম্পত্তি হস্তান্তরের বায়নানামা- এটি লিখত হতে হবে এবং সম্পাদনের ৩০ দিনের মধ্যে রেজিস্ট্রি করতে হবে। তবে ১ জুলাই ২০০৫ এর পূর্বে সম্পাদিত বায়নানামা ৩১ ডিসেম্বর ২০০৫ এর মধ্যে রেজিস্ট্রি করতে হবে।

   (২) দলিল সম্পাদনের ৩ মাসেের মধ্যে রেজিস্ট্রি করতে হবে।

   (৩) উত্তরাধিকার ব্যতীত অন্যান্য ক্ষেত্রে অবশ্যই বিক্রেতার নাম সর্বশেষ প্রকাশিত খতিয়ানে থাকতে হবে। প্রয়ােজনে নামজারির মাধ্যমে বিক্রেতার নাম খতিয়ানে অন্তর্ভক্ত করতে হবে। অন্যথায় জমি হস্তান্তর করলেও তা বাতিল হবে।

(৪) উত্তরাধিকার সূত্রে প্রাপ্ত জমি বিক্রয়ের ক্ষেত্রে বিক্রেতার বা বিক্রেতা যার ওয়ারিশ তার নাম খতিয়ানে থাকতে হবে।

(৫) সরকার কর্তৃক নির্ধারিত ফরমের কলামসূহ যথাযথভাবে পুরণপূর্বক দলিল সম্পাদন করতে হবে। উক্ত ফরমেট ব্যতীত দলিল সম্পাদন বৈধ হবে না।

(৬) দলিলের ক্রেতা বিক্রেতা উভয়ের ছবি সংযুক্ত করতে হবে ও বাম হাতের বৃদ্ধাঙুলির ছাপ দিতে হবে।

(৭) দলিলে জমির প্রকৃতি, বাজার মূলয, জমির দৈর্ঘ্য, প্রস্থ ও চৌহদ্দির বর্ণনা থাকতে হবে।

(৮) কমপক্ষে পূর্বের ২৫ বছরের সংক্ষিপ্ত মালিকানার ক্রমবর্ণনা বায়া দলিল নং ও তারিখ ইত্যাদি উল্লেখ করতে হবে।

(৯) সম্পত্তি হস্তান্তরকারী/ বিক্রেতা কর্তৃক সম্পাদিত দলিলে এই মর্মে এফিডেফিট করতে হবে যে, তিনি উক্ত জমির আইনসংগত মালিক এবং ইতােপূর্বে তিনি অন্য কোথাও উক্ত জমি হস্তান্তর/বিক্রয় করেননি।

(১০) বায়নাকৃত কোন স্থাবর সম্পত্তি উক্ত বায়নাচুক্তি আইনসংগতভাবে বাতিল না হওয়া পর্যন্ত অন্য কোথাও হস্তান্তর করা যাবে না, করলেও তা অকার্যকর হবে।

(১১) প্রত্যেক বায়নানামায় তার মেয়াদ উল্লেখ করতে হবে। তবে কোন মেয়াদ উল্লেখ না থাকলে সম্পাদনের তারিখ থেকে ৬ মাস পর্যন্ত তা কার্যকর থাকবে।

(১২) কান বন্ধকী সম্পত্তি বন্ধকগ্রহীতার লিখত অনুমতি ব্যতীত বিক্রয়, হস্তান্তর বা পুন:বন্ধক দেয়া যাবে না।

(১৩) মুসলিম আইন অনুযায়ী স্বামী-স্ত্র মধ্যে, পিতা-মাতা ও সন্তানদের মধ্যে দাদা-দাদি ও নাতি-নাতনীর, মধ্যে, আপন ভাইদের মধ্যে, আপন বােনদের মধ্যে, আপন ভাই ও বােনদের মধ্যে সম্পদিত বা দলিলের ক্ষেত্রে রেজিষ্ট্রেশন ফি হবে মাত্র একশত টাকা

(১৪) তামাদি আইন অনুযায়ী তামাদির সময়সীমা ৩ (তিন) বছরের পরিবর্তে ১ (এক) বছর করা হয়েছে।

জমির হিস্যা লেখার পদ্ধতি :

জমির পুরনাে দিনের রেকর্ড বা খতিয়ানে এবং হস্তান্তর দলিলের তফসিলের মালিকের জমির অংশ বা হিস্যা বিভিন্নভাবে (এককে) লেখার প্রচলন দেখা যায়, যেমন-আনা, কড়া, ক্রান্তি, গণ্ডা ইত্যাদি। বর্তমানে একক আধুনিক পদ্ধতিতে অর্থাৎ সহস্রাংশে (দশমিক দিয়ে) লেখা হয়। 

ভূমি হস্তান্তর সংক্রান্ত জাল-জালিয়াতি হ্রাস, একই ভূমি একাধিকবার বিক্রয় বন্ধ করা ও ভূমি সংক্রান্ত মামলা মকদ্দমা হ্রাসের উদ্দেশ্যে সরকার রেজিস্ট্রেশন সংক্রান্ত চারটি আইনে (The Registration Act 1908, The Transfer of Property Act 1882, The Specific Relief Act 1877, The Limitation Act 1908) কিছু যুগউপযোগী সংশোধন করা হয়েছে।

বাংলাদেশ এ প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানি

কিভাবে বাংলাদেশ এ আপনি আপনার প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানি খুলবেন?

আপনারা যদি একটি কোম্পানি খুলতে চান তার বিশদ বিবরণ এই পোস্টটি তে আছে।
বাংলাদেশে জমি রেজিস্ট্রেশান আইন এবং কিভাবে জমি রেজিস্ট্রেশান করবেন ২০২২ এ_ Tahmidur Rahman Best Law Firm In Bangladesh.png

তাহমিদুর রহমান সিএলপি কর্তৃক জমি রেজিস্ট্রেশান সম্পর্কিত আইনী সেবা:

ব্যারিস্টার তাহমিদুর রহমান: সিএলপি একটি সনামধন্য ‘ল’ চেম্বার যেখানে ব্যারিস্টারস এবং আইনজীবীদের মাধ্যমে জমি রেজিস্ট্রেশান আইন সম্পর্কিত সকল প্রকার আইনগত সহায়তা, পরামর্শ প্রদান করে থাকে। কোন প্রশ্ন বা আইনী সহায়তার জন্য আমাদের সাথে যোগাযোগ করুনঃ-ই-মেইল: [email protected] ফোন: +8801847220062 or +8801779127165 , ঠিকানা: জামিলা ভিলা, ফ্ল্যাট-২সি, বাসা-৪/এ/১ (তৃতীয় তল), রোড-০২, গুলশান -১, ঢাকা-১২১২।

How To Take Foreign Loans In Bangladesh 2023 _ Overseas Financing For Bangladeshi Companies_ The Most Complete Guideline For Foreign Loans_Best Company Law Firm In Bangladesh

জমি রেজিস্ট্রেশন সম্পর্কিত প্রশ্ন

বাংলাদেশে পরিচালিত ভূমি জরিপ বা রেকর্ড গুলো কি কি?

1. CS -Cadastral Survey

2. SA- (1956)

3. RS -Revitionel Survey

4. PS – Pakistan Survey

5. BS- Bangladesh Survey (1990)

ক) সি.এস. জরিপ/রেকর্ড (Cadastral Survey)a

“সিএস” হলো Cadastral Survey (CS) এর সংক্ষিপ্ত রূপ। একে ভারত উপমহাদেশের প্রথম জরিপ বলা হয় যা ১৮৮৯ সাল হতে ১৯৪০ সালের মধ্যে পরিচালিত হয়। এই জরিপে বঙ্গীয় প্রজাতন্ত্র আইনের দশম অধ্যায়ের বিধান মতে দেশের সমস্ত জমির বিস্তারিত নকশা প্রস্তুত করার এবং প্রত্যেক মালিকের জন্য দাগ নম্বর উল্লেখপুর্বক খতিয়ান প্রস্তুত করার বিধান করা হয়। প্রথম জরিপ হলেও এই জরিপ প্রায় নির্ভূল হিসেবে গ্রহণযোগ্য। মামলার বা ভূমির জটিলতা নিরসনের ক্ষেত্রে এই জরিপকে বেস হিসেবে অনেক সময় গণ্য করা হয়।

খ) এস.এ. জরিপ (State Acquisition Survey)

১৯৫০ সালে জমিদারী অধিগ্রহণ ও প্রজাস্বত্ব আইন পাশ হওয়ার পর সরকার ১৯৫৬ সালে সমগ্র পূর্ববঙ্গ প্রদেশে জমিদারী অধিগ্রহনের সিদ্ধান্ত নেয় এরং রায়েতের সাথে সরকারের সরাসরি সম্পর্ক স্থাপনের লক্ষ্যে জমিদারদের প্রদেয় ক্ষতিপুরণ নির্ধারন এবং রায়তের খাজনা নির্ধারনের জন্য এই জরিপ ছিল। জরুরী তাগিদে জমিদারগন হইতে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে এই জরিপ বা খাতিয়ান প্রণয়ন কার্যক্রম পরিচালিত হয়েছিল।

গ) আর.এস. জরিপ ( Revisional Survey)

সি. এস. জরিপ সম্পন্ন হওয়ার সুদীর্ঘ ৫০ বছর পর এই জরিপ পরিচালিত হয়। জমি, মলিক এবং দখলদার ইত্যাদি হালনাগাদ করার নিমিত্তে এ জরিপ সম্পন্ন করা হয়। পূর্বেও ভুল ত্রুটি সংশোধনক্রমে আ. এস জরিপ এতই শুদ্ধ হয় যে এখনো জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের ক্ষেত্রে আর, এস জরিপের উপর নির্ভর করা হয়। এর খতিয়ান ও ম্যাপের উপর মানুষ এখনো অবিচল আস্থা পোষন করে।

ঘ) সিটি জরিপ (City Survey)

সিটি জরিপ এর আর এক নাম ঢাকা মহানগর জরিপ। আর.এস. জরিপ এর পর বাংলাদেশ সরকার কর্তিক অনুমতি ক্রমে এ জরিপ ১৯৯৯ থেকে ২০০০ সালের মধ্যে সম্পন্ন করা হয়। এ যবত কালে সর্বশেষ ও আধুনিক জরিপ এটি। এ জরিপের পরচা কম্পিউটার প্রিন্ট এ পকাশিত হয়।

জমি রেজিস্ট্রেশন করার জন্য কি কি প্রয়োজন হয় ?

রেজিস্ট্রেশন করার জন্য কিছু তথ্যের প্রয়োজন হয়।
জমি রেজিস্ট্রি করতে বিক্রিত জমির পূর্ণ বিবরণ উল্লেখ থাকতে হবে।
দলিলে দাতা-গ্রহীতার পিতা-মাতার নাম, পূর্ণ ঠিকানা এবং সাম্প্রতিক ছবি সংযুক্ত করতে হবে।
যিনি জমি বিক্রয় করবেন তার নামে অবশ্যই নামজারী (মিউটেশন) থাকতে হবে (উত্তরাধিকার ছাড়া)।
বিগত ২৫ বছরের মালিকানা সংক্রান্ত সংক্ষিপ্ত বিবরণ ও সম্পত্তি প্রাপ্তির ধারাবাহিক ইতিহাস লেখা থাকতে হবে।
সম্পত্তির প্রকৃত মূল্য, সম্পত্তির চারদিকের সীমানা, নকশা দলিলে থাকতে হবে।
দাতা কর্তৃক বিক্রিত সম্পত্তি অন্য কারো কাছে বিক্রি করেনি মর্মে হলফনামা থাকতে হবে।
জমির পর্চাসমূহে (সি.এস, এস. এ, আর.এস) মালিকানার ধারাবাহিকতা থাকতে হবে।
বায়া দলিল (প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে) থাকতে হবে।

বিভিন্ন প্রকার দলিল রেজিস্ট্রেশনের জন্য কি পরিমাণ ফিসের প্রয়োজন হয় ?

দলিল রেজিস্ট্রি করা হয় রেজিস্ট্রেশন আইন,স্ট্যাম্প আইন, আয়কর আইন, অর্থ আইন ও রাজস্ব সংক্রান্ত বিধি এবং পরিপত্রের আলোকে। সকল দলিলের রেজিস্ট্রি ফিস সমান নয়। সরকার বিভিন্ন সময় সমসাময়িক বিবেচনা অনুযায়ী রেজিস্ট্রি ফিস নির্ধারণ করে থাকেন।

জমি এর ক্ষেত্রে কর দেয়ার কি নিয়ম ?

ভ্যাট ও উৎস কর সব সময়ই জমির বিক্রেতা প্রদান করবে। আয়কর আইন মতে, এই দুই ধরণের কর বিক্রেতার আয়ের ওপর ধার্য হয়। এই কর বিক্রেতার নামে সরকারি কোষাগারে জমা দিতে হয়। 


উৎস কর ও ভ্যাট ছাড়া অন্যান্য সকল ধরণের কর জমির ক্রেতাকে পরিশোধ করতে হবে।

সাব রেজিস্ট্রারের পরামর্শে ফজর আলী তার জমি রেজিস্ট্রি করে। এর ফলে তিনি জমি বেদখল হবার জটিলতা থেকে রক্ষা পায়।

জমি রেজিস্ট্রেশন কোথায় করা হয়? জমি ক্রয় করলে যাচাই বাছাইয়ের জন্য কোথায় যেতে হবে?

প্রতিটি উপজেলায় সাব-রেজিস্ট্রি অফিস আছে। সেখানে জমি রেজিস্ট্রি করা হয়।

জমি ক্রয় করলে যাচাই বাছাইয়ের জন্য কোথায় যেতে হবেঃ 

ইউনিয়ন ভূমি অফিস ও উপজেলা ভূমি অফিসে বিক্রিত জমির তফসিল নিয়ে জমিটি আগে বিক্রি হয়েছে কিনা, আগে অন্য কারো নামে নামজারী আছে কিনা, বিক্রয়ে উল্লেখিত দাগ, খতিয়ান, নকশা ঠিক আছে কিনা এবং সর্বোপরি সরেজমিনে বিক্রিত জমি আছে কিনা তার খোঁজ পাওয়া যাবে। প্রয়োজনে ভূমি অফিস থেকে সার্ভেয়ার (আমিন) নিয়ে জমি মেপে জমি ক্রয় করতে হবে।

বন্ধকী দলিল রেজিস্ট্রি ফি কত?

সম্পত্তি হস্তান্তর আইন ১৮৮২ এর ৫৯ ধারা মতে বন্ধকী দলিলের রেজিস্ট্রেশন ফি হলো-
ক. বন্ধকী সম্পত্তির অর্থের পরিমাণ ৫ লাখ টাকার বেশি না হলে অর্থের ১%, তবে ২০০ টাকার কম নয় এবং ৫০০ টাকার বেশি নয়। যেমন: কোন সম্পত্তির পরিমাণ বিশ হাজার টাকা হলে ১% হিসেবে রেজিস্ট্রেশন ফি ২০০ টাকা, কিন্তু কোন সম্পত্তির পরিমাণ দশ হাজার টাকা হলে ১% হিসেবে রেজিস্ট্রেশন ফি ১০০ টাকা। আইনে সর্বনিম্ন ফি ২০০ টাকা হওয়ায় দশ হাজার টাকা পরিমাণের বন্ধকী জমির দলিল রেজিস্ট্রেশন ফি ২০০ টাকা-ই হবে (১০০ টাকা নয়)। একইভাবে চার লক্ষ টাকা পরিমাণের জমির দলিল রেজিস্ট্রেশন ফি ১% হিসেবে ৪০০০ টাকা কিন্তু আসলে ফি দিতে হবে ৫০০ টাকা কেননা আইনে সর্বোচ্চ ফি ধরা হয়েছে ৫০০ টাকা।
খ. বন্ধকী সম্পত্তির অর্থের পরিমাণ ৫ লাখ টাকার বেশি এবং ২০ লাখ টাকার বেশি না হলে অর্থের ০.২৫%, তবে ১৫০০ টাকার কম নয় এবং ২০০০ টাকার বেশি নয়।
গ. বন্ধকী সম্পত্তির অর্থের পরিমাণ ২০ লাখ টাকার বেশি হলে বন্ধকী অর্থের ০.১০% টাকা হারে,তবে ৩০০০ টাকার কম নয় এবং ৫০০০ টাকার বেশি হবে না।
এ কথা মনে রাখতে রেজিস্ট্রেশন আইন ২০০৪ এর সংশোধন অনুযায়ী বন্ধকী সম্পত্তি গ্রহীতার লিখিত সম্মতি ছাড়া কোন বন্ধক দেয়া যাবে না এবং বন্ধকী সম্পত্তি বিক্রি করা যাবে না।
কবলা বন্ধকী দলিল রেজিস্ট্রি ফিঃ 
ক. স্ট্যাম্প শুল্ক ক্রয়মূল্যের....................৫%
খ. রেজিস্ট্রি ফি ১-২৫০০ টাকা পর্যন্ত বিক্রয়মূল্যের জন্য টাকা...........................................৫০/-
গ. রেজিস্ট্রি ফি ২৫০১-৪০০০ টাকা পর্যন্ত বিক্রয়মূল্যের জন্য ............................................২%
ঘ. রেজিস্ট্রি ফি ৪০০১ হতে তদুর্ধ্ব বিক্রয়মূল্যের জন্য......................................................২.৫০%
ঙ. হলফনামা ফি টাকা..........................................................................................৫০/-
চ. পৌরকর: সিটি কর্পোরেশন/পৌর/টাউন/ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড এলাকার জন্য.............................১%
ছ. উৎস কর: সিটি কর্পোরেশন/পৌর/টাউন/ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড এলাকার জন্য............................৫%
জ. সিটি কর্পোরেশন/পৌর/টাউন/ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড এলাকা বর্হিভূত জমি বিক্রির
ক্ষেত্রে জেলা পরিষদ ও ইউনিয়ন পরিষদ কর (১
ঝ. সিটি কর্পোরেশন/পৌর/টাউন/ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড বর্হিভূত এলাকার ১ লাখ
টাকার অধিক মূল্যের অকৃষি জমি বিক্রির ক্ষেত্রে বিক্রেতার উৎস কর.....................................৫%
ঞ. মওকুফ: সিটি কর্পোরেশন/পৌর/টাউন/ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড এলাকার বাইরের ১ লাখ টাকার নিচে অকৃষি জমি ও অন্যান্য কৃষি/ভিটি/নামা ইত্যাদি) জমি বিক্রয়ের ক্ষেত্রে পৌর কর ও উৎস কর দিতে হবে না। কিন্তু জমি বিক্রির মূল্য ১ লাখ টাকার বেশি হলে, জমিটি অকৃষি হলে সে জমি পৌর এলাকার বাইরে হলেও তার জন্য ভ্যাট পরিশোধ করতে হবে.........................................................................৫%

স্থাবর সম্পত্তি বিক্রয়ের বায়না দলিল ফি কত?

হেবা দলিলের রেজিস্ট্রি ফিঃ

ক. বিক্রয়যোগ্য সম্পত্তির বিক্রয়মূল্য ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত হলে রেজিস্ট্রি ফি হবে ৫০০ টাকা।

খ. বিক্রয়যোগ্য সম্পত্তির বিক্রয়মূল্য ৫ লাখ টাকার বেশি এবং ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত হলে রেজিস্ট্রি ফি হবে ১০০০ টাকা।

গ. বিক্রয়যোগ্য সম্পত্তির বিক্রয়মূল্য ৫০ লাখ টাকার বেশি হলে রেজিস্ট্রি ফি হবে ২০০০ টাকা।

হেবা দলিলের রেজিস্ট্রি ফিঃ

মুসলিম পারসোনাল ল’ অনুযায়ী স্বামী-স্ত্রী, পিতা-মাতা, সন্তান, দাদা-দাদী, নাতি-নাতনী, সহোদর ভাই-ভাই, সহোদর বোন-বোন, সহোদর ভাই-বোনের মধ্যে হেবা বা দান দলিলের রেজিস্ট্রি ফি মাত্র ১০০ টাকা।

জমি বিক্রয় করতে জমি বিক্রেতার নামে নামজারী কি জরুরি?

উত্তরাধিকার সূত্রে সম্পত্তি ছাড়া সকল সম্পত্তি বিক্রয় করার ক্ষেত্রে দাতার নামে নামজারী বাধ্যতামূলক।

বাংলাদেশে পরিচালিত ভূমি জরিপ বা রেকর্ড গুলো কি কি?

ভূমি জরিপকালে চূড়ান্ত খতিয়ান প্রস্তত করার পূর্বে ভূমি মালিকদের নিকট খসড়া খতিয়ানের যে অনুলিপি ভুমি মালিকদের প্রদান করা করা হ তাকে“মাঠ পর্চা”বলে। 

এইমাঠ পর্চারেভিনিউ/রাজস্ব অফিসার কর্তৃক তসদিব বা সত্যায়ন হওয়ার পর যদি কারো কোন আপত্তি থাকে তাহলে তা শোনানির পর খতিয়ান চুড়ান্তভাবে প্রকাশ করা হয়। আর চুড়ান্ত খতিয়ানের অনুলিপিকে“পর্চা”বলে।

জমির “মৌজা” কি? জমির “তফসিল” কাকে বলে?

যখন CS জরিপ করা হয় তখন থানা ভিত্তিক এক বা একাধিক গ্রাম, ইউনিয়ন, পাড়া, মহল্লা অালাদা করে বিভিন্ন এককে ভাগ করে ক্রমিক নাম্বার দিয়ে চিহ্তি করা হয়েছে। আর বিভক্তকৃত এই প্রত্যেকটি একককে মৌজা বলে।

“তফসিল” কাকে বলে?

জমির পরিচয় বহন করে এমন বিস্তারিত বিবরণকে “তফসিল” বলে।

ঈনফো-গ্রাফিক্স

বাংলাদেশে জমি রেজিস্ট্রেশান আইন এবং কিভাবে জমি রেজিস্ট্রেশান করবেন ২০২২ এ_ Best Law Firm In Bangladesh.png

Finance

Investment

জমি রেজিস্ট্রেশন আইন বাংলাদেশ

Foreign Currency Account in Bangladesh 

Foreign Currency Account in Bangladesh  The Bangladesh Bank has authorized the institutions to maintain multiple types of foreign currency and convertible taka accounts. Bangladesh Bank's rules for opening and maintaining these accounts. Moreover, persons ordinarily...

Procedures To Get Tax Exemption Certificate 

Procedures To Get Tax Exemption Certificate in Bangladesh A tax exemption is the reduction or elimination of a person's obligation to pay a tax that would otherwise be imposed. The tax-exempt status may provide total tax exemption, a reduction in tax rates, or impose...

How to obtain mutation khatian in Bangladesh

Mutation khatian in Bangladesh In Bangladesh, mutation is a significant role in land ownership. When you acquire ownership of land or property, you must execute the mutation. It is a crucial piece of evidence supporting the land's title. If your name is not on the...

Suit for Khatian correction in Bangladesh

Khatian correction Suit in Bangladesh Land ownership and property rights hold immense significance in any society, providing stability and security to individuals and communities. In Bangladesh, where land is a precious resource and a crucial element of livelihoods,...

Boiler Registration Certificate for BEZA

Boiler Registration Certificate for BEZA in Bangladesh In order to install and use a boiler with a volumetric capacity greater than 25 liters for their manufacturing or production unit, an EZ Unit Investor must first obtain a No Objection Certificate (NOC) from the...

BIDA Registration for Foreign Investment Project

BIDA Registration for Foreign Investment Project in 2023 According to the BIDA Act of 2016, all industrial investors (those outside the jurisdiction of BEZA, BEPZA, BHTPA, and BSCIC) are required to register their investments with BIDA. Registration with BIDA is not...

Power of Attorney guidelines for foreign individuals in Bangladesh

Power of attorney guidelines for non-Bangladesh nationals The purpose of this article is to provide a comprehensive overview of the laws pertaining to Power of Attorney in Bangladesh and to outline the key considerations when drafting a Power of Attorney. Definition:...

Bangladesh Labour Rules 2015 Amendment

Labour Rules Amendment 2015: The government revised the Bangladesh Labour Rules for 2015 in 2015. The government issued a revised gazette of the Labour Rules on September 1, 2022, modifying 99 rules and eliminating two. By means of this newsletter, we hope to shed...

VAT Deductible at Source in Bangladesh

VAT Deductible at Source in Bangladesh: A Guide by Tahmidur Rahman Remura Law Firm In Bangladesh, the Value Added Tax (VAT) Act of 2012 introduced provisions for VAT Deductible at Source (VDS). These regulations outline the circumstances under which VAT should be...

Declaratory Suit in Bangladesh

Declaratory Suit in Bangladesh: Clearing Legal Confusion and Establishing Rights In the realm of legal disputes concerning property rights or legal character, a declaratory suit can serve as a powerful tool for seeking clarification and resolution. Under Section 42 of...

Land Survey Tribunal in Bangladesh | Jurisdiction, Powers, Scope, Appeals| A Complete Overview

Land Survey Tribunal in Bangladesh | Jurisdiction, Powers, Scope, Appeals| A Complete Overview

Land Survey Tribunal in Bangladesh | Jurisdiction, Powers, Scope, Appeals| A Complete Overview

Tahmidgoldenpicturebackground E1569742859700

Tahmidur Rahman, Senior Assoicate, TR Barristers in Bangladesh

6 Aug 2019

Table of Contents

Find the subsections below, If you want to jump through specific sections instead of reading the whole article.

Tahmidur Rahman Real Estate &Amp; Construction Law In Bangladesh

This article provides an overview of the authority and jurisdiction of the Land Survey Tribunal in Bangladesh, it’s powers, scope and appeals. Nonetheless, before explaining the powers and procedures of the Land Survey Tribunal, it is important to know exactly what the Land Survey Tribunal is all about.

What is Land Survey Tribunal in Bangladesh? 

 

Section 145A-145I of the State Acquisition and Tenancy Act (SAT) was added to Section 2 of the State Acquisition and Tenancy Act 2004. Through adding this portion, the legislature has created a special platform and an alternative way for the civil court to correct the record of rights in the summary proceedings. Section 145A(1) of the SAT Act provides that the Government can set up special courts specially set up for the purpose of deciding disputes arising from the final publication of the last revised record of rights. The Government has already formed a tribunal called the Land Survey Tribunal pursuant to Section 145A(1) in almost all districts of the country. (Land Survey Tribunal in Bangladesh)

Section 145 D of this chapter sets out the powers and procedures of the Tribunal, provided that the Land Survey Tribunal or the Land Survey Appeals Tribunal exercise the powers and obey the procedure laid down in the Code of Civil Procedure 1908.

Section 145(1) specifies that’ the Government can, by notice in the Official Gazette, lay down rules for the purposes of this Article.’ Nevertheless, this provision has yet to be made by the Government, although it is vitally important to continue the proceedings of the Tribunals smoothly and to ensure justice in the cases brought before the Tribunals.

Record of Rights in Land Law of Bangladesh:

The word record of rights, sometimes referred to as “Khatian,” is simply a survey of the record of rights that people have on land.

Ownership and use of a specific parcel of land can be ascertained and assured if the land records are kept and the laws governing land relations are written. Land records establish the state of ownership and property rights. In land deals analysis of land records, it is important to decide who the actual owner is. Over time, the “Rule” established to govern land relations has centered on classifying people using land according to the categories of ownership and the reason for which they use land.

Record of Right is a land record in which all sorts of rights and obligations in respect of each piece of land are recorded.

 

 

Section 145 Of Land Survey Tribunal In Bangladesh

 

Procedure of Change of Rights in Bangladesh Land Law:

 

Any person who acquires, by descent, survivorship, inheritance, division, purchase of a mortgage, gift, lease or otherwise, any right as holder, occupant, owner, mortgagee, land lord, government lessee or tenant of the property, shall have the duty, within three months from the date of such acquisition, to submit in writing to Talathi his acquisition of that right.

 

Rewriting Record of Rights in Bangladesh:

 

Entries made in the record of rights are believed to be valid until the contrary has been established. Where the inference is contradicted by proof, the importance of the entry in the Record of Right is not evidentiary.

The person who poses a question as to the incorrectness of the entry to the legal record must prove his claims. The records in the correct database, registered mutations, etc. are evidence of the fact recorded in the act, although there is no conclusive evidence.

 

Jurisdiction of the Land Survey Tribunal in Bangladesh 

he Land Survey Tribunal was formed to correct only the most recent updated record of rights. Section 145A(1) of the SAT Act provides that such court shall have jurisdiction in respect of such cases only as a result of the final publication of the’ last amended record or privileges,’ i.e. BS / BRS / RS, Dhaka City of Jorip Khatian. Therefore, only the last record of rights can be changed by the Land Survey Tribunal. (Land Survey Tribunal in Bangladesh)

 

Screenshot 2019 10 22 At 6.22.54 Pm

“TR Barristers in Bangladesh is Considered as one of the leading firms in Property Law in Dhaka, Bangladesh”

Carpe Noctem Bangladesh

Powers of Land Survey  Tribunal in Bangladesh

 

In the first place, the applicant challenges the record of law in the Land Survey Tribunal. The Land Survey Tribunal may, upon request, declare that the record under appeal is incorrect and direct the office concerned to correct the record in compliance with its decision; and that court may also issue any further order as may be appropriate. Each order of the Tribunal must first state that the record is incorrect and then provide another order for the record to be corrected in accordance with that declaration.

 

Process of Appeal to the Land Survey Tribunal:

Pursuant to the provision set out in Section145B(5) of this chapter, any person aggrieved by a decision of the Land Survey Tribunal may prefer an appeal to the Land Survey Appeals Tribunal within three months from the date of that decision. Section 145B(6) further specifies that an appeal may also be issued within the next three months, even after the expiry of the time limit set out in subsection (5), if the Land Survey Appellate Tribunal is satisfied with the grounds for delay set out by the appellant.

 

The Tribunals shall, on a regular basis, pass judgment, decree and order in the cases which they have tried. In accordance with the provisions laid down in Section 145B(1), the Appellate Tribunals were to be set up to hear the appeals arising out of the judgment, order or order handed down by the Tribunals.

How ‘Tahmidur Rahman & TR Barristers in Bangladesh Associates’ can help the purchaser or owner of any land in Bangladesh:

 

The Barristers, Advocates, and lawyers at TRW in Gulshan, Dhaka, Bangladesh are highly experienced at assisting clients in dealing with correction of record-of-rights at the Land Survey Tribunal. For queries or legal assistance, please reach us at:

E-mail: [email protected]
Phone: +8801847220062 or +8801779127165
House 410, Road 29, Mohakhali DOHS (Land Survey Tribunal in Bangladesh)

Land Survey Tribunal Law Firm In Bangladesh Tahmidur Rahman

Want new articles before they get published?
Subscribe to our Awesome Newsletter.

Foreign Currency Account in Bangladesh 

Foreign Currency Account in Bangladesh  The Bangladesh Bank has authorized the institutions to maintain multiple types of foreign currency and convertible taka accounts. Bangladesh Bank's rules for opening and maintaining these accounts. Moreover, persons ordinarily...

Procedures To Get Tax Exemption Certificate 

Procedures To Get Tax Exemption Certificate in Bangladesh A tax exemption is the reduction or elimination of a person's obligation to pay a tax that would otherwise be imposed. The tax-exempt status may provide total tax exemption, a reduction in tax rates, or impose...

How to obtain mutation khatian in Bangladesh

Mutation khatian in Bangladesh In Bangladesh, mutation is a significant role in land ownership. When you acquire ownership of land or property, you must execute the mutation. It is a crucial piece of evidence supporting the land's title. If your name is not on the...

Suit for Khatian correction in Bangladesh

Khatian correction Suit in Bangladesh Land ownership and property rights hold immense significance in any society, providing stability and security to individuals and communities. In Bangladesh, where land is a precious resource and a crucial element of livelihoods,...

Boiler Registration Certificate for BEZA

Boiler Registration Certificate for BEZA in Bangladesh In order to install and use a boiler with a volumetric capacity greater than 25 liters for their manufacturing or production unit, an EZ Unit Investor must first obtain a No Objection Certificate (NOC) from the...

BIDA Registration for Foreign Investment Project

BIDA Registration for Foreign Investment Project in 2023 According to the BIDA Act of 2016, all industrial investors (those outside the jurisdiction of BEZA, BEPZA, BHTPA, and BSCIC) are required to register their investments with BIDA. Registration with BIDA is not...

Power of Attorney guidelines for foreign individuals in Bangladesh

Power of attorney guidelines for non-Bangladesh nationals The purpose of this article is to provide a comprehensive overview of the laws pertaining to Power of Attorney in Bangladesh and to outline the key considerations when drafting a Power of Attorney. Definition:...

Bangladesh Labour Rules 2015 Amendment

Labour Rules Amendment 2015: The government revised the Bangladesh Labour Rules for 2015 in 2015. The government issued a revised gazette of the Labour Rules on September 1, 2022, modifying 99 rules and eliminating two. By means of this newsletter, we hope to shed...

VAT Deductible at Source in Bangladesh

VAT Deductible at Source in Bangladesh: A Guide by Tahmidur Rahman Remura Law Firm In Bangladesh, the Value Added Tax (VAT) Act of 2012 introduced provisions for VAT Deductible at Source (VDS). These regulations outline the circumstances under which VAT should be...

Declaratory Suit in Bangladesh

Declaratory Suit in Bangladesh: Clearing Legal Confusion and Establishing Rights In the realm of legal disputes concerning property rights or legal character, a declaratory suit can serve as a powerful tool for seeking clarification and resolution. Under Section 42 of...

Real Estate Law in Bangladesh | Law of Construction Matters | A complete overview of Real Estate in Bangladesh

Real Estate Law in Bangladesh | Law of Construction Matters | A complete overview of Real Estate in Bangladesh

Real Estate & Construction Law in Bangladesh – Rules & Regulations & Everything you need to know

Tahmidgoldenpicturebackground E1569742859700

Tahmidur Rahman, Senior Associate, TR Barristers in Bangladesh

20 Oct 2019

Table of Contents

Find the subsections below, If you want to jump through specific sections instead of reading the whole article.

Real Estate &Amp; Construction Law In Bangladesh_Tahmidur Rahman_Law Firm In Dhaka

This post in will explain in details the Real Estate & Construction Law in Bangladesh | Law of Construction Matters | A complete overview of Real Estate in Bangladesh | Everything about property law that you need to know and be aware of with diagrams and infographics.

 

Real Estate Law in Bangladesh 

At first let’s break down what is real estate Bangladesh before diving down towards Real Estate & Construction Law in Bangladesh . It is important to understand that Real Estate is not the same thing as personal property, and should not be confused. Personal assets include intangible assets such as investments, as well as tangible assets such as furniture and fixtures such as a dishwasher. Even renters may also claim parts of a home as personal property, provided that you have purchased and installed the property with the permission of the lessor.

What is Real Estate? 

Real estate is a property composed of land and its houses, as well as the land’s natural resources, including uncultivated flora and fauna, farmed crops and livestock, soil, and any other mineral deposits. 

 

Real Estate in Bangladesh  

Real estate is both a tangible asset and an immovable form. Definitions of real property include ground, houses and other facilities, as well as the rights to use and enjoy the land and all its amenities. Renters and leaseholders may be entitled to possess land or structures that are considered part of their house, but these rights are not, strictly speaking, considered ownership. Hence:

 

  • Real estate is real, that is, physical, land-based property and everything on it, including houses, flora and fauna and natural resources.
  • Immovable properties have three basic categories: residential, commercial and industrial.
  • Residential real estate is less costly and more viable for individuals when it comes to finance, whereas commercial real estate is more profitable and secure.
  • As an investment, real estate offers income and capital appreciation.

Jurisdiction of Real Estate Law in Bangladesh

Real Estate Development and Management Act 2010 is the authoritative act in regards to Real Estate Law in Bangladesh. In the act Section 2 explains the registration process of Real Estate Developers and their due responsibilities. (Real Estate & Construction Law in Bangladesh )

Section 2 Real Estate Law In Bangladesh
Best Construction Real Estate Construction Firm In Bangladesh

 

Registration Requirements for Real Estate Developers in Bangladesh 

If someone wants to enter the real estate market in Bangladesh for commercial purposes, the act specifies that he or she will have to submit the following documentation for registration with the agency concerned.

  • Trade License
  • Tax Identification Number (TIN)
  • VAT Registration Number
  • Credentials of experts in your company
  • Memorandum of Association, Article of Association and Certificate of Incorporation
  • REHAB Membership Registration Copy

Buying, Selling, Transferring of Real Estate in Bangladesh

Real Estate Development and Management Act 2010 is the authoritative act in regards to Buying, Selling, Transferring of Real Estate in Bangladesh Real Estate Law in Bangladesh. In the act Section 3 explains the registration of buying, selling and transferring process of Real Estate Developers and their due responsibilities. The buyer or seller can not adjust the quoted price as set out in the deal. The sum can, however, be changed later if the parties agree to jointly use better materials for the land. First, in no longer than three months, the owner will sign over the land, registry and principal deed. Additionally, if the property has any difference with respect to size or volume after sale, the price must be changed within three months of the transfer. So keep these things in mind when you buy a property next time in Bangladesh.

Transferring Of Real Estate Law In Bangladesh
Top Drawer Real Estate Construction Law Firm In Dhaka

 All Landowners and Developers / Purchasers will not initiate or carry out construction work on the land project’s construction or development work without receiving design permission from the government’s appropriate authority such as RAJUK, CDA, KDA, RDA, etc.

Tahmidur Rahman Real Estate Construction Law In Bangladesh

“TR Barristers in Bangladesh is Considered as one of the leading firms in Property Law and Real Estate Law Firm in Dhaka, Bangladesh”

Carpe Noctem Bangladesh

The Property Contract in Real Estate Law of Bangladesh 

For a general landlord in Bangladeh, there has to be a legal property contract for any trade. Again it’s a common thing, too. As a homeowner, he or she will obtain for his / her possession a specific portion of the apartment building. But, if the owner wants to auction off his share’s apartments, he will have to enforce an attorney’s power and give the developer the right to sell his share of the house. Instead, as a proprietor of his new apartment, he is allowed by the owner to receive one year of maintenance facility. Additionally, if any errors arise within two years of the handover, the contractor must repair the damage from their wallet.

 

Real Estate Law For Developers in Bangladesh 

Real Estate Developers have to be committed towards the enhancement and growth of the Real Estate Sector of Bangladesh. If they recognize that for sustainable long term growth of this sector, they must conduct their business with a great proficiency, equality, honesty and ethics. Out of the all the parties in the market, a real estate developer has to deal with clause VI. B of the Memorandum and Articles of Association of the Real Estate Housing Association of Bangladesh incorporated under the companies ACT, 1913 (new 1994) the most. Rules and regulations are much rigorous for the real estate developers. For example, if you want to enter the market for commercial purpose, you will have to produce the following documents as stated above to the concerned authority for registration.

How ‘Tahmidur Rahman & TR Barristers in Bangladesh Associates’ helps the purchaser of any land in Bangladesh:

Tahmidur Rahman- TR Barristers in Bangladesh, Law Firm in Dhaka assists buyers, financiers, shareholders, developers on their land-related matters like property due diligence (domain identification, encumbrance check, ground limit, permissive land usage, building development) related to ownership and occupancy, lease, stamping and registration of papers, zoning and permissible use of lands, essential ambitions.

Real Estate Law In Bangladesh

 Legal Services Offered by Firms in Regards to Real Estate in Bangladesh

 

 

Drafting, look over & negotiating various property documents.

Legal opinion by vetting all property related documents.

Transaction support for all types of real estate schemes including due diligence and title search.

Arbitration and Litigation relating to property related disputes.

Assist and Advice on issues relating to stamp duty and registration.

Advice on matters relating to land tenures including agricultural land issues

Foreign Direct Investment in real estate.

Drafting and reviewing contract

Negotiating and litigating landlord/tenant disputes by serving Legal Notice.

 

Our real estate lawyers department has extensive experience in Bangladesh on different types of real estate ventures. Our main specialist areas cover acquisitions and divestments, selling, investments and other real estate and real estate transfers; legal aspects of residential property and landlord issues; landlords’, renters’ and homeowners ‘ privileges; real estate title; resolution of property rights claims; cost-sharing arrangements with investors and shareholders, growth and expansion financing etc.

Team Tahmidur Rahman | TR Barristers in Bangladesh additionally draws on the experience of the Business Law Practice in its practice of Real Estate & Construction Law in Bangladesh . We give guidance on organizing land co-speculation or joint venture project, raising capital, setting up a suitable business vehicle and verified loaning. TRW team assure their client rapidly assemble a multi-disciplinary group of experienced business real estate specialists to address a diverse range of real property needs.

 

 

Best Real Estate Law Firm In Dhaka Bangladesh

“For a general landlord in Bangladeh, there has to be a legal property contract for any trade. Again it’s a common thing, too. As a homeowner, he or she will obtain for his / her possession a specific portion of the apartment building. But, if the owner wants to auction off his share’s apartments, he will have to enforce an attorney’s power and give the developer the right to sell his share of the house.”

 

Land Registration Bangladesh Law Firm In Dhaka Tahmidur Rahman
Want new articles before they get published?
Subscribe to our Awesome Newsletter.

Foreign Currency Account in Bangladesh 

Foreign Currency Account in Bangladesh  The Bangladesh Bank has authorized the institutions to maintain multiple types of foreign currency and convertible taka accounts. Bangladesh Bank's rules for opening and maintaining these accounts. Moreover, persons ordinarily...

Procedures To Get Tax Exemption Certificate 

Procedures To Get Tax Exemption Certificate in Bangladesh A tax exemption is the reduction or elimination of a person's obligation to pay a tax that would otherwise be imposed. The tax-exempt status may provide total tax exemption, a reduction in tax rates, or impose...

How to obtain mutation khatian in Bangladesh

Mutation khatian in Bangladesh In Bangladesh, mutation is a significant role in land ownership. When you acquire ownership of land or property, you must execute the mutation. It is a crucial piece of evidence supporting the land's title. If your name is not on the...

Suit for Khatian correction in Bangladesh

Khatian correction Suit in Bangladesh Land ownership and property rights hold immense significance in any society, providing stability and security to individuals and communities. In Bangladesh, where land is a precious resource and a crucial element of livelihoods,...

Boiler Registration Certificate for BEZA

Boiler Registration Certificate for BEZA in Bangladesh In order to install and use a boiler with a volumetric capacity greater than 25 liters for their manufacturing or production unit, an EZ Unit Investor must first obtain a No Objection Certificate (NOC) from the...

BIDA Registration for Foreign Investment Project

BIDA Registration for Foreign Investment Project in 2023 According to the BIDA Act of 2016, all industrial investors (those outside the jurisdiction of BEZA, BEPZA, BHTPA, and BSCIC) are required to register their investments with BIDA. Registration with BIDA is not...

Power of Attorney guidelines for foreign individuals in Bangladesh

Power of attorney guidelines for non-Bangladesh nationals The purpose of this article is to provide a comprehensive overview of the laws pertaining to Power of Attorney in Bangladesh and to outline the key considerations when drafting a Power of Attorney. Definition:...

Bangladesh Labour Rules 2015 Amendment

Labour Rules Amendment 2015: The government revised the Bangladesh Labour Rules for 2015 in 2015. The government issued a revised gazette of the Labour Rules on September 1, 2022, modifying 99 rules and eliminating two. By means of this newsletter, we hope to shed...

VAT Deductible at Source in Bangladesh

VAT Deductible at Source in Bangladesh: A Guide by Tahmidur Rahman Remura Law Firm In Bangladesh, the Value Added Tax (VAT) Act of 2012 introduced provisions for VAT Deductible at Source (VDS). These regulations outline the circumstances under which VAT should be...

Declaratory Suit in Bangladesh

Declaratory Suit in Bangladesh: Clearing Legal Confusion and Establishing Rights In the realm of legal disputes concerning property rights or legal character, a declaratory suit can serve as a powerful tool for seeking clarification and resolution. Under Section 42 of...

Call us!

× WhatsApp!
/* home and contact page javasccript *//* articles page javasccript */